শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:৩৬ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
ভাইরাল হলো হাসনাইন সাজ্জাদীকে কবিতাবিজ্ঞানের জন্য বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার প্রদানের দাবি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা জাদুঘর উদ্বোধন কাচের চুড়ি -রুপা খানম লন্ডনে আনোয়ার শাহজাহানের “করোনা আতঙ্ক দেশে দেশে” গ্রন্থের প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠিত সত্যজিৎ রায়ের জন্মশতবর্ষ আন্তর্জাতিক সেমিনার অনুষ্ঠিত স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী, মুজিবশতবর্ষ এবং ট্রাবের ২৭ বছরের সাফল্য ঔপন্যাসিক আরিফ মঈনুদ্দীনের উপন্যাস প্রসঙ্গ – ফকির মুহব্বত শাহ্ সিনেমেকিং আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের ৩টি সেমিনার অনুষ্ঠিত পুরনো প্রেমিক বৃত্তান্ত -হাসনাইন সাজ্জাদী সবার জন্য বিজ্ঞানবাদ -হাসনাইন সাজ্জাদী
স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী, মুজিবশতবর্ষ এবং ট্রাবের ২৭ বছরের সাফল্য

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী, মুজিবশতবর্ষ এবং ট্রাবের ২৭ বছরের সাফল্য

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী, মুজিবশতবর্ষ এবং ট্রাবের ২৭ বছরের সাফল্য

-হাসনাইন সাজ্জাদী
।।
বাংলাদেশ এখন সাফল্যের নৌকায় চড়ে অনেক দূর এগিয়ে চলেছে।পদ্মা সেতু নির্মাণের মত সাফল্য বাংলাদেশ দেখিয়েছে।নয়নাভিরাম উড়াল সেতু বাংলাদেশের উন্নয়নকে চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে।কর্ণফুলী টানেল,মাল্টি লেনের সড়কপথে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন,মেট্রোরেল, দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্রের কালো হাত ভেঙে দিয়েছে।বিদেশে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল।
বিদেশি মূদ্রার রিজার্ভ, মাথাপিছু আয়ের উউর্ধগতি আক্ষরিক অর্থে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাকে হাতছানি দিচ্ছে।জাতিসংঘ শান্তি মিশনে বাংলাদেশ একটি চমক সৃষ্টিকারী দেশ।আমাদের বিভিন্ন বাহিনী থেকে যোগদানকারী বীরেরা বিশ্বদূত।তারা যেখানেই গেছেন সেখানে ছোটো একটি বাংলাদেশ গড়েছেন।মানবতার মা হিসেবে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা সপ্রশংসিত এক মহীয়সী গরবিনী দেশ নেতা।দেশ হারানো রোহিঙ্গাদের স্থান দিয়ে বিশ্ব ইতিহাসে বাংলাদেশ ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ বিশ্বনেতাও।
২৭ বছর পূর্বে যে ট্রাবের জন্ম অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে, নানা চড়াই উৎরাই এর মধ্যদিয়ে তা এখন শিল্পসাহিত্য ও সংস্কৃতির উন্নয়নে বলিষ্ঠ ভুমিকা রেখে চলেছে।চলচ্চিত্র, নাটক,সঙ্গীত, নৃত্য ও শিল্পকলার নানা আঙ্গিকে ভুমিকায় ট্রাব এখন একটি কার্যকর ও গ্রহণযোগ্য একটি ঠিকানা।যখন অন্যান্য সংগঠনের কার্যক্রম স্থবির ট্রাব তখন পুরস্কার প্রদান এবং পিকনিক আয়োজনের মধ্য দিয়ে বাঙালি সংস্কৃতির চর্চাকে এগিয়ে নিয়ে চলেছে।
বাংলাদেশের স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর উৎসবের অংশীদার হয়ে আমাদের বাঙালি জনম এখন পূর্ণতায়।তার উপরে আমরা পেয়েছি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ। বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে বাংলাদেশের জন্ম হতো না।বাঙালির নিজস্ব ও স্বাধীন আবাস হত না।আর শেখ হাসিনার জন্ম না হলে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল হতো না।এটা আমাদের সৌভাগ্য যে বঙ্গবন্ধু থেকে বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশ থেকে শেখ হাসিনা আজ বিশ্বসত্তা।সবার উপরে আমরা।
জয়বাংলা।জয় বঙ্গবন্ধু।বাংলাদেশ দীর্ঘজীবী হোক।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesbazar_brekingnews1*5k
© All rights reserved © 2020
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD