বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০১:৫৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
সাহিত্যে রহিম করিম ওয়ার্ল্ড প্রাইজ পেলেন এস এম শাহনূর পর্যটন পুলিশের মিডিয়া উইংস প্রধান আবদুল হালিমকে কবি সাংবাদিকদের ফুলেল শুভেচ্ছা ভুলে ভরা বাংলাদেশের নদী বিষয়ক গ্রন্থগুলো -হাসনাইন সাজ্জাদী বৃক্ষরোপণ ও সবজি চাষে জোর দিচ্ছে ট্যুরিস্ট পুলিশ নিউইয়র্ক বইমেলায় সাহিত্যমান বিতর্ক এখন বিজ্ঞান কবিতার কাল -হাসনাইন সাজ্জাদী ‘পৃথিবীর পথে-প্রান্তরে’ আমার কয়েকটি কথা -হাসনাইন সাজ্জাদী আনন্দকাব্য না বিজ্ঞানচিন্তা? বিদ্যুৎ ব্যবহারে মিতব্যয়ী হতে নির্দেশ ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপির মিডিয়া শাখায় নতুন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবদুল হালিম। ট্যুরিস্ট পুলিশ সদর দপ্তরে
সিলেটে ভূমিকম্পঃ ভয়াবহ বিপর্যয়ের আশঙ্কা

সিলেটে ভূমিকম্পঃ ভয়াবহ বিপর্যয়ের আশঙ্কা


মোস্তফা কামাল পলাশ।।সিলেটে অল্প সময়ের ব্যবধানে ৪-৮ টি ভূমিকম্প শুধু সিলেট না সম্ভবত সারা বাংলাদেশের জন্য চিন্তার কারণ বলে মনে করি।এতে টেকটোনিক প্লেটের ফাটল বেড়ে গেলে ভয়াবহ বিপর্যয়ের আশঙ্কা রয়েছে। তবে এর মাধ্যমে যদি সঞ্চিত শক্তির ক্ষয় হয় তবে তা হবে কল্যাণকর।

জাতিসংঘের বৃত্তি নিয়ে ইতালির The Abdus Salam International Centre for Theoretical Physics থেকে Earth System Physics বিষয়ে ১ বছর মেয়াদী যে Post Graduate Diploma (মাস্টার্সের সমমান) করেছি তার ৫০% ছিলও আবহাওয়া পদার্থ বিজ্ঞান ও ৫০% ছিলও ভূমিকম্প বিজ্ঞান। সেই পড়ালেখার অভিজ্ঞতার আলোকে বলতে চাই আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আর কোন ভূমিকম্প না হয় (সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যায় না) তবে পুরো বাংলাদেশের মানুষ কিছুটা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে পরে। কারণ এই ভূমিকম্পের মাধ্যমে ডাউকি ফল্টে ১৮৯৭ সালের পর থেকে জমা হওয়া শক্তির কিছু অংশ আজ ক্ষয় হয়ে গেল।

হিমালয় অঞ্চলের ভূমিকম্প সম্বন্ধে বিশ্বের সবচেয়ে নামকরা ভূমিকম্প বিশেষজ্ঞ রজার বিলহ্যাম এর মতে সিলেটের পাশে মেঘালয়ের ডাউকি ফল্টে ৮ মাত্রার অধিক ভূমিকম্প হওয়াটা শুধু সময়ের ব্যাপার। বিশ্ববিখ্যাত নেচার বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধে প্রকাশিত গবেষণা প্রবন্ধে উল্লেখ করেছেন যদি একটি মাত্র বড় কম্পনের মাধ্যমে জমা হওয়া সকল সঞ্চিত শক্তি ছেড়ে দেয় তবে তার ফলাফল হবে অকল্পনীয়। আরও নির্দিষ্ট করে বললে বলতে হয় ঢাকা ও সিলেট শহরের অবস্থা হবে জাপানের হিরোশিমা ও নাগাসাকিতে পারমানবিক বোমার পরে যে ধ্বংশযোগ সাধিত হয়েছিল সেই একই মানের। কিন্তু যদি ছোট-ছোট ভূমিকম্পের মধ্যমে জমা হওয়া শক্তি ক্ষয় হয় তবে তা হবে বাংলাদেশের মানুষের জন্য আশীর্বাদ।

বিপরীত ক্রমে এই ছোট-ছোট ভূমিকম্প যদি পুরো ডাউকি ফল্টকে অস্থিতিশীল করে দেয় তবে সিলেট কিংবা পুরো বাংলাদেশে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ হবে অকল্পনীয়। তাই আগামী ১ সপ্তাহ বিশেষ করে আগামী ২৪ ঘণ্টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সবাই প্রার্থনা করুন যেন এই ছোট-ছোট কম্পনই যেন শেষ ভূমিকম্প হয়।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesbazar_brekingnews1*5k
© All rights reserved © 2020
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD