বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০২:৩১ অপরাহ্ন

দিল্লির সাহিত্য আকাদেমির অযোধ্যার গ্রামালোকে বিজ্ঞান কবিতার জয়জয়কার -মৃণাল মাইতি

দিল্লির সাহিত্য আকাদেমির অযোধ্যার গ্রামালোকে বিজ্ঞান কবিতার জয়জয়কার -মৃণাল মাইতি

বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর অযোধ্যার জমিদার বাড়িতে দিল্লি সাহিত্য আকাডেমি(ভারত সরকারের সংস্কৃতি মন্ত্রক) ও ভিস পত্রিকার আয়োজনে বিজ্ঞান কবিতার জয়জয়কারগত ১৮ অক্টোবর ২০২২ মঙ্গলবার দিন বাঁকুড়া জেলার বিষ্ণুপুর থানার অন্তর্গত অযোধ্যা গ্রামের জমিদার বাড়িতে আয়োজিত হয়েছিল একটি চিত্তাকর্ষক ‘গ্রামলোক’ সাহিত্য সভা ।লুপ্তপ্রায় জমিদার বাড়ির মনোরম পরিবেশে মঞ্চে এপার বাংলা ও ওপার বাংলার কবি সাহিত্যিকদের সমাবেশ ঘটেছিল। বাংলাদেশ থেকে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে এসেছিলেন তিনজন কবি সাহিত্যিক যথাক্রমে বিজ্ঞান কবিতার প্রবর্তক হাসনাইন সাজ্জাদী , বিশ্ববাঙালি সংসদ সভাপতি লোকমান হোসেন পলা ও কাস্টমস কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম খান। অনুষ্ঠানের সভাপতি ছিলেন আন্দামান থেকে আগত দিল্লি সাহিত্য আকাদেমির জেনারেল কাউন্সিল সদস্য অনাদিরঞ্জন বিশ্বাস।সাহিত্য আকাদেমি ও ভিস পত্রিকা আয়োজিত এই অনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করেন কবি ও বিশিষ্ট সমাজকর্মী আশিস চক্রবর্তী।এছাড়াও কবি সাহিত্যিকদের মধ্যে আমন্ত্রিত ছিলেন ভাষা গবেষক অনিমেষ সরকার ,কবি অর্চিতা বিদ,সাহিত্যিক মৃণাল মাইতি,সুনীল দাস,ওমকার সরকার প্রমূখ।

স্বরচিত কবিতা পাঠ করে দর্শকদের মাতিয়ে দেন তারাশংকর চক্রবর্তী , চন্দন বাসুলি , বীনাপাণি ঘোষ, রবীন্দ্রনাথ পাত্র প্রমূখ । অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে মানিকলাল সিংহ সংস্কৃতি গবেষণা পরিষদের পক্ষ থেকে সম্মাননা প্রদান করা হয় বিশিষ্ট কবি সাহিত্যিকদের বাংলা সাহিত্যে অবদান রাখার জন্য।বাংলাদেশ থেকে বিজ্ঞান কবিতা প্রবর্তনে হাসনাইন এবং বিজ্ঞান কবিতা বাঙালির চর্চায় লোকমান হোসেন পলা।দিল্লি সাহিত্য আকাদেমির সফল নেতৃত্ব প্রদান করাতে কবি ও সাহিত্যপত্রিকার সম্পাদক অনাদিরঞ্জন বিশ্বাস মহোদয়কেও সম্মাননা দেয় মানিক লাল সিংহ সংস্কৃতি গবেষণা পরিষদ।
এছাড়াও বাংলাদেশের বিজ্ঞান কবিতা আন্দোলন ও বিশ্ববাঙালি সংসদ কবি অনাদিরঞ্জন বিশ্বাস ও কবি আশিস চক্রবর্তীকে সম্মাননা প্রদান করে একই মঞ্চে।
অনুষ্ঠানের প্রধান উদ্যোক্তা বিষ্ণুপুর রামানন্দ কলেজের অধ্যাপক ও লেখক ডক্টর চন্দন বাঙ্গাল এই সাহিত্য সম্মেলনের উদ্দেশ্য ব্যাখ্যা করে বলেন-‘ আমাদের উদ্দেশ্য ভারত-বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক সমন্বয় ও বাংলা ভাষা চর্চা ।এ ছাড়াও বিষ্ণুপুরের বহু কৃতির সাংস্কৃতিক অবদান ভুলতে বসেছে বিষ্ণুপুর তথা বাঁকুড়ার মানুষ। সেই সব কৃতি মানুষদের স্মরণ করতে তাঁদের নামাঙ্কিত সম্মাননা দিয়ে তাঁদের প্রতি আমাদের তর্পন । এছাড়াও ইস্ট ইণ্ডিয়া আমলের বাঁকুরার জমিদার বাড়ির সাংস্কৃতিক গরিমা জনসমক্ষে আসুক এই সাহিত্য অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে আমরা বার্তা দিতে চাই ।’ অনুষ্ঠানের সভাপতি শ্রীঅনাদিরঞ্জন বিশ্বাস বলেন –‘ সাহিত্য আকাদেমির সহযোগিতায় ভিস পত্রিকার উদ্যোগে এই গ্রামালোক সাহিত্য অনুষ্ঠান বাংলা সাহিত্যকে সমৃদ্ধ করবে বলে মনে করি ।’ এই বার্তা দিয়ে তিনি এ দিনের অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন ।
বাংলাসাহিত্যের বিশেষ অধ্যায় হাসনাইন সাজ্জাদী প্রবর্তিত বিজ্ঞান কবিতার পক্ষে প্রচারণা ছিল চোখে পড়ার মত।গুণী মানুষদের আকর্ষণ বিজ্ঞান কবিতার প্রতি।হাসনাইন সাজ্জাদী,বিজ্ঞানবাদ রাষ্ট্রতত্ত্ব ও বিজ্ঞান কবিতার বিষয় ব্যাখ্যা করেন।পরদিন বিষ্ণুপুর পোড়া মাটির হাটে ‘ বিষ্ণুপুর জাগরণ ‘সবাইকে সম্বর্ধনা প্রদান করে…

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesbazar_brekingnews1*5k
© All rights reserved © 2020
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD