বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০১:৫২ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
সাহিত্যে রহিম করিম ওয়ার্ল্ড প্রাইজ পেলেন এস এম শাহনূর পর্যটন পুলিশের মিডিয়া উইংস প্রধান আবদুল হালিমকে কবি সাংবাদিকদের ফুলেল শুভেচ্ছা ভুলে ভরা বাংলাদেশের নদী বিষয়ক গ্রন্থগুলো -হাসনাইন সাজ্জাদী বৃক্ষরোপণ ও সবজি চাষে জোর দিচ্ছে ট্যুরিস্ট পুলিশ নিউইয়র্ক বইমেলায় সাহিত্যমান বিতর্ক এখন বিজ্ঞান কবিতার কাল -হাসনাইন সাজ্জাদী ‘পৃথিবীর পথে-প্রান্তরে’ আমার কয়েকটি কথা -হাসনাইন সাজ্জাদী আনন্দকাব্য না বিজ্ঞানচিন্তা? বিদ্যুৎ ব্যবহারে মিতব্যয়ী হতে নির্দেশ ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপির মিডিয়া শাখায় নতুন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবদুল হালিম। ট্যুরিস্ট পুলিশ সদর দপ্তরে
ভালোবাসার আকাঙ্ক্ষা – মাসুদ পথিক

ভালোবাসার আকাঙ্ক্ষা – মাসুদ পথিক

ভালোবাসার আকাঙ্ক্ষা - মাসুদ পথিক

ভালোবাসার আকাঙ্ক্ষা

হঠাৎ তরমুজ দানা বুনতে বুনতে কোমল মাটিতে চেপে ধরে কেউ বলুক ভালোবাসি
সে খুশিতে উড়তে থাকুক দানা খেতে আসা সহস্র পাখিরা
বীজ খেকো বাবুই তাড়াতে তাড়াতে, সন্ধ্যার বাঁশঝাড়ে আমাকে বুকে চেপে ধরুক গোপনে
আর আলতো করে জড়িয়ে ফিসফিস কেউ বলুক ‘ভালোবাসি’

পুকুর ঘাটে কিংবা নদীর জলে বাসন মাজতে মাজতে পালাতক মাছের পিছু নিতে নিতে
মাছ ভেবে আমাকে জড়িয়ে ধরুক, আর নাকে নাক ঘঁষে বলুক, ভালোবাসি

চাষ ফেরত কেউ ভিখিরির মতো জল চাইতে এসে আঙুলে আঙুল লেগে গেলে বলুক না, ভালোবাসি

আমি বকরিকে ঘাস খাওয়াই যখন বাড়ির আড়ে, তখন কেউ আমার খোঁপায় বকের পালক গুজে দিতে দিতে চেপে ধরুক

চাঁদনিরাতে বারান্দায় বসে যখন দাদির কেচ্ছা শুনি, ঠিক তখন চুপিচুপি কেউ আসুক, আমার চুলে হারিয়ে যাওয়া শুকতারা গুজে দিকনা

হুঁকার ভেতরের পানি বদলের নামে আমাকে কেউ ভরে নিয়ে দিকনা সুখ টান
আর আমি ধোঁয়া হয়ে ছড়িয়ে পড়ি পুরো সংসারে

মধ্যরাতে রাতজাগা পাখির শব্দে ঘুম ভেঙে গেলে কেউ এসে শীতার্ত আমাকে বুকের খাঁচায় ভরে বলুক, শুধু ভালোবাসি

আমার নামাজ সমাপ্ত হলে, জায়নামাজে বসে পড়ুক কেউ আর তসবির দানার মতো বলুক, ভালোবাসি ভালোবাসি

কিংবা স্বরস্বতী পূজোর পর্বে, হৃদপিণ্ডফুল অর্পণ করে বলুক-না কেউ, দেবী, প্রিয়তমা ভালোবাসি শুধু তোকে ভালোবাসি

অনেক চাষের পর হালের গরু দুটি উদ্দেশ্যহীন মাঠে ছেড়ে দিয়ে বাদাম ক্ষেতে আমাকে পরম মমতায় বুনে দিক

অথবা চান করে এসে রান্নার আয়োজনে আমি, কেউ এসে ভেজা চুলে নাক ডুবিয়ে বলুক, মাটি, শুধু তোকেই ভালোবাসি

আর তখন আমি তার স্পর্শে গলে গলে গলে ঘামের কাদা হয়ে রান্নাঘরের বিছানায় মিশে যাবো, আরো
কোনো একদিন ঘরের কোণে মাধবীলতা হয়ে জন্মাবো নিশ্চয়

খুব শূন্যতায়, কেঁদে কেঁদে বুক ভাসালে কেউ-কি সামনে এসে অশ্রু মুছিয়ে দিতে পারে না?
আমার অশ্রুর দানা খেতে খেতে বলতে পারে-না ভালোবাসি, কান্না তোকে ভালোবাসি…!

মরে যাওয়া আমি এক, আমার কবর খুঁড়ে লাশ খেতে আসা শেয়াল, আমাকে দেখে আশ্চর্য হোক, না-খেয়ে চুমুয় চুমুয় বাঁচিয়ে তুলুক
কেননা ভালোবাসা ছাড়া আমি স্বর্গেও যেতে চাই না-যে

অবহেলায় মরে যা আমি এখন বসে থাকি কবরে, সাজিয়ে ভালোবাসার সংসার
কবরে বুনেছি কোমল ঘাস, প্রিয় বকরিটি হয়তো ঘাস খেতে এসে ভালোবেসে ডাকবে, ভালোবাসি মা, প্রিয়তাম মা

ভালোবাসার আজীবন ভিখিরি আমিকে মৃত ভেবে ফেলে গেছে রাতের শেষ নক্ষত্রও
ফেলে গেছে যুদ্ধের শেষ আহত সৈনিকটিও

তবুও এমনটা কি হতে পারেনা? কালের শেষ চাষা ক্ষেতে একাকী হাল দিতে এসে আমাকেই মাটির দলার মতো বুকে তুলে নিবে
তার বুকের ভেজা মাটিতে বুনে নিবে! পারেনা কী হতে?
পরম মায়ায় বলবে, খুব ভালোবাসি, ওগো প্রিয়তমা মাটি
আমি তখন সুখে সুখে থরথর শোকপাখি হয়ে উড়ে বেড়াবো মাঠে মাঠে, আহা!

আর আর হাজারো ভালোবাসাহারা প্রেয়সীর হাহাকারে, হাহাকারে মিশে রইবো…

ভালোবাসার আকাঙ্ক্ষা | মাসুদ পথিক

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesbazar_brekingnews1*5k
© All rights reserved © 2020
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD