সোমবার, ১৫ Jul ২০২৪, ১০:৪০ পূর্বাহ্ন

অসহনীয় উষ্ণতা -তীব্র তাপপ্রবাহ। লিয়াকত হোসেন খোকন

অসহনীয় উষ্ণতা -তীব্র তাপপ্রবাহ। লিয়াকত হোসেন খোকন

অসহনীয় উষ্ণতা -তীব্র তাপপ্রবাহ

সবচেয়ে উষ্ণ হয়েছিল চলতি বছরের জানুয়ারি মাস। আর এই জুন মাসের শুরু থেকেই তীব্র তাপপ্রবাহ চলছে। গত ১৭৪ বছরের ইতিহাসে যা বেশ ভয়ের বলেই মনে করছেন বিজ্ঞানীরা। পরিবেশ দূষণ থেকেই বাড়ছে এই উষ্ণতা – এই তীব্র তাপপ্রবাহ। আর এর সাক্ষী প্রাণীকুল থেকে উদ্ভিদকুল। সাক্ষী সময়। পৃথিবীর এক নাগাড়ে বেড়ে চলা উষ্ণতার কোপ পড়ে ২০২৩ এর গোড়াতেই।
জলবায়ু বিশেষজ্ঞরা তখনই জানিয়েছিলেন পৃথিবীতে গত ১৭৪ বছরে এমন ঘটনা বিরল। ওই নিয়ে সপ্তমবারের জন্য জানুয়ারির উষ্ণতা নতুন রেকর্ড গড়েছিল। বিশ্বের ইতিহাসে এমন ঘটনা যথেষ্ট আতঙ্কের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বিজ্ঞানীদের কাছে।
চলতি বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি ন্যাশনাল ওশিয়ানিক অ্যান্ড অ্যাটিমস্ফেরিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের তরফে প্রকাশিত একটি রিপোর্টে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়। তাতেই জানা যায় এই নতুন তথ্য।
উষ্ণতা সংক্রান্ত এক রিপোর্টে বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, পৃথিবীর দুই মেরুর বরফই ধীরে ধীরে গলে যাচ্ছে। তাই গড় উষ্ণতা বেড়ে যাচ্ছে। বেড়ে চলছে বলেই এমন তীব্র তাপপ্রবাহের সন্মুখীন হচ্ছে বাংলাদেশ সহ পৃথিবীর অন্যান্য দেশগুলো। এই বছরের প্রথম মাসে সারা বিশ্বের গড় উষ্ণতা স্বাভাবিকের থেকে ১.৫৭ ডিগ্রি ফারেনহাইট বেশি ছিল। সেলসিয়াসে যা ০.৮৭ ডিগ্রি। বিশ শতকের গড় উচ্চতার নিরিখেও রেকর্ড ছুঁয়েছে এই উষ্ণতা।
২০২৩ সালের জানুয়ারি মাস বিশ শতক থেকে ৪৭তম উষ্ণ জানুয়ারি। পাশাপাশি ওই শতকের ৫২৭তম উষ্ণ মাস।
এই তথ্যগুলোকে ফিরে ফিরে দেখার মধ্যে আমাদের বর্তমান ও ভবিষ্যতকে চিনতে বুঝতে পারার একটা চর্চাও জারি থাকে।

লিয়াকত হোসেন খোকন
রূপনগর, ঢাকা, বাংলাদেশ।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesbazar_brekingnews1*5k
© All rights reserved © 2020
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD